Home / প্রবাসী খবর / মালয়েশিয়া শ্রমবাজার: ২ লাখ টাকার মধ্যে কর্মী পাঠানোই লক্ষ

মালয়েশিয়া শ্রমবাজার: ২ লাখ টাকার মধ্যে কর্মী পাঠানোই লক্ষ

শ্রমবাজার চালুর বিষয়ে বুধবার মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক বসছে মালয়েশিয়ায়। সকাল ১১ টায় দেশটির প্রশাসনিক কেন্দ্রস্থল পুত্রাজায়ায় মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী এম কুলাসেগারানের সাথে বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ নেতৃত্বে বৈঠক হবে।

মালয়েশিয়া সফরে প্রতিনিধি দলে মন্ত্রী ইমরান ইমরান আহমদ এমপির সাথে থাকছেন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সেলিম রেজা, অতিরিক্ত সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন, যুগ্ম-সচিব ফজলুল করিম, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক মো: আজিজুর রহমানএবং বিএমইটির পরিচালক মো: নুরুল ইসলাম এছাড়াও রাজধানী কুুয়ালালামপুর থেকে প্রতিনিধিদলে যোগ দেবেন বাংলাদেশের হাইকমিশনার মুহ. শহীদুল ইসলাম এবং কাউন্সেলর (শ্রম) মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম।

বৈঠক বিষয়ে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ জানান, শ্রমবাজার চালুর বিষয়ে মালয়শিয়া সরকারের চাওয়া গুরুত্ব দেয়া হবে। তিনি বলেন, কর্মী নেবে মালয়েশিয়া, তাদের কিছু চাহিদা থাকতে পারে। তবে কর্মীদের সুবিধা এবং দেশের স্বার্থ রক্ষা করেই শ্রমবাজার চালুর বিষয়ে কাজ করা হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

ইমরান আহমদ বলেন, এবার বাজার চালুর ক্ষেত্রে অভিবাসন ব্যয়ের বিষয়টি সবচেয়ে গুরত্ব দেয়া হবে। কর্মীরা যাতে কম খরচে মালয়েশিয়া যেতে পারে সেই বিষয়ে কাজ করছেন তারা। মন্ত্রী বলেন, এবার দুই লাখ টাকার মধ্যে কর্মী পাঠানোই মূল লক্ষ। সেক্ষেত্রে মালয়েশিয়াও বিষয়টি ইতিবাচকভাবে দেখছে বলেও জানান তিনি। ইমরান আহমদ বলেন, এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে যদি তারা (মালয়েশিয়া সরকার) কোন শিদ্ধান্ত নেয় সেটাও মেনে নিতে প্রস্তুত বাংলাদেশ। তারা যদি মনে করে ১৫/১৬শ’ এজেন্সি দেশটিতে গিয়ে ভিসা খোঁজা শুরু করলে অসুস্থ প্রতিযোগিতা শুরু হতে পারে। সেই ক্ষেত্রে মালয়েশিয়া কোন একটা পদ্ধতি ঠিক করেও দিতে পারে।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, শ্রমবাজার খুলতে এবার কর্মীদের অভিবাসন ব্যয় কমানোকে মূল লক্ষ নির্ধারণ করা হয়েছে। এক্ষেত্র যারা এগিয়ে আসবে তাদেরকেই স্বাগত জানাবে মন্ত্রণালয়। একই সাথে মালয়েশিয়া সরকার যেই পদ্ধতি ঠিক করবে সেটাকেই গুরুত্ব দেয়া হবে।

উল্লেখ্য গেলো বছরের ১লা সেপ্টেম্বর বন্ধ হয়ে যায় মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোর অনলাইন পদ্ধতি এসপিপিএ। এরপর সে সময়ের মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বি.এসসি ২৫ সেপ্টেম্বর মালয়েশিয়া গিয়ে বৈঠক করেও, শ্রমবাজারটি চালু করতে পারেননি। এরপর ৩১ অক্টোবর ঢাকায় দুদেশের যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেই বৈঠকে নতুন করে কর্মী নেয়ার কিছু পদ্ধতি ঠিক হয়। চলতি বছরের ১৪ মে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্হান মন্ত্রী ( তখন প্রতিমন্ত্রী) ইমরান আহমদ মালয়েশিয়া সফরে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তানশ্রি মুহিউদ্দিন ইয়াসিন ও মানবসম্পদ মন্ত্রী এম কুলাসেগারানের সাথে বৈঠক করেন। সেই বৈঠকের অগ্রগতি হিসেবে ২৯ ও ৩০ মে মালয়েশিয়ায় দুদেশের যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের আরেকটি বৈঠক হয়

About admin

Check Also

বাংলাদেশে কর্মব্যস্ত মালয়েশিয়ান পুলিশ টিম !!

রয়েল মালয়েশিয়ান পুলিশের উচ্চ পর্যায়ের একটি টিম বাংলাদেশ সফর করছে। অক্টোবর মাসে মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশের হাইকমিশনার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *